বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৪:২৬ পূর্বাহ্ন

পবিত্র আশুরা : ত্যাগের চেতনায় জীবন হোক আত্মশুদ্ধির

পবিত্র আশুরা : ত্যাগের চেতনায় জীবন হোক আত্মশুদ্ধির

পবিত্র আশুরা

ত্যাগের চেতনায় জীবন হোক আত্মশুদ্ধির

আজ মহিমান্বিত আশুরা। আশুরা মানে দশম দিন। আশুরার দিনেই একসময় সিয়াম পালন ফরজ ছিলো। শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সময় ত্রিশ দিনের সিয়ামের বিধান শুরু হওয়ার পর আশুরার সিয়াম সুন্নাত হিসেবে পালন করতেন সাহাবায়ে কেরাম। মুহাররম মাস দিয়েই শুরু হয়েছে হিজরি ১৪৪৩। সারা বিশ্বের মুসলমানদের জন্য গভীর শোকের দিনও এটি। এই দিনে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর দৌহিত্র হজরত ইমাম হোসাইন (রা.) অন্যায় ও ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে চক্রান্তকারী ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে কারবালা প্রান্তরে মর্মান্তিকভাবে শাহাদত বরণ করেন।

কারবালা প্রান্তরের সেই শোকাবহ ঘটনার স্মরণে প্রতিবছর ১০ মহররম পবিত্র আশুরা পালিত হয়। শিয়া সম্প্রদায় এদিনে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে, যার মধ্যে তাজিয়া মিছিল উল্লেখযোগ্য। বাংলাদেশে যুগ যুগ ধরে অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে আশুরা পালিত হয়ে আসছে। কিন্তু ২০১৫ সালে উগ্রপন্থী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ঢাকায় আশুরার আগের রাতে তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতিকালে হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকজনকে হত্যা করে। বগুড়া জেলায় এক শিয়া মসজিদে নামাজরত একজন মুসল্লিকে হত্যার ঘটনাও ঘটে। এরপর থেকে আশুরার দিন সরকার নিরাপত্তাব্যবস্থা আরও জোরদার করেছে।

আবারও আশুরা এসেছে করোনার প্রাদুর্ভাবের মধ্যে। সংক্রমণের আশঙ্কায় সরকার তাজিয়া মিছিল করার অনুমতি দেয়নি। শিয়া সম্প্রদায়ও রাস্তায় তাজিয়া মিছিল বের না করে হোসেনি দালানে অবস্থিত ইমামবাড়া চত্বরে তাদের কর্মসূচি সীমিত রাখার কথা জানিয়েছে। আমরা তাদের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। নিছক আনুষ্ঠানিকতা নয়, আশুরার যে ত্যাগের চেতনা, তাকে হৃদয়ে ধারণ করতে পারলে পৃথিবী থেকে হিংসা-বিদ্বেষের অবসান ঘটবে।

ইসলামের ইতিহাসে পবিত্র আশুরার অসংখ্য তাৎপর্যময় ঘটনা উজ্জ্বল হয়ে আছে। এই দুনিয়া সৃষ্টি, হযরত আইয়ুব (আ.)-এর কঠিন পীড়া থেকে মুক্তি, হযরত ঈসা (আ.)-এর আসমানে জীবিত অবস্থায় উঠে যাওয়া, হজরত নুহ (আ.)-এর নৌকা ঝড়-তুফানের কবল থেকে মুক্তি পাওয়াসহ অসংখ্য ঐতিহাসিক ঘটনার সঙ্গে মহররমের ১০ তারিখ অবিস্মরণীয় ও মহিমান্বিত। সর্বোপরি এই পৃথিবীর মহাপ্রলয় বা রোজ কিয়ামত মহররমের ১০ তারিখে ঘটবে বলে বিভিন্ন গ্রন্থে উল্লেখ রয়েছে।

হজরত আবু কাতাদাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, আশুরার দিনের রোজার দ্বারা আমি আল্লাহর কাছে বিগত বছরের গুনাহ মাফের আশা রাখি।’ (মুসলিম, তিরমিজি)

দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক আজ বিশেষ প্রবন্ধ, নিবন্ধ প্রকাশ করবে। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বিভিন্ন বেসরকারি রেডিও-টিভি চ্যানেলও এই দিনের তাৎপর্য নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচার করবে।

ঢাকাসহ দেশে যাতে শান্তিপূর্ণভাবে পবিত্র আশুরা পালিত হয়, সে জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে। আশুরার মূল চেতনা অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায়ের সংগ্রাম। সেই সংগ্রামে সাময়িক আঘাত এলেও চূড়ান্ত বিজয় অবধারিত। এটাই মহররমের শিক্ষা। কাজী নজরুল ইসলামের ভাষায়, ‘ত্যাগ চাই, মর্সিয়া-ক্রন্দন চাহি না’।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com