বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:১২ অপরাহ্ন

সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ ও এক প্রতিভার গল্প

সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ ও এক প্রতিভার গল্প

সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ ও এক প্রতিভার গল্প

এইচ.এম. কাওছার বাঙ্গালী : নাম আবদুল ওয়াহিদ। বাড়ি হবিগঞ্জের লাখাই। কয়েকদিন আগে তিনি আমাকে ফোন করলেন। জানতে চাইলেন সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ কর্মশালার বিষয়ে। আমিও কথা বলছিলাম ভদ্রতা রক্ষা করে। অত্যন্ত বিনয় ও নম্রতা সাথে তিনি আমার কাছে অনুষ্ঠিতব্য কোর্স সম্পর্কে সব জানতে চাইলেন। আমরা কি চাই? সংক্ষেপে তাকে বুঝিয়ে দিলাম। আমাদের টার্গেট হচ্ছে, গণমাধ্যমে কাজ করার জন্য কিছু কর্মী তৈরি করা।

যাদেরকে আমরা সর্বোচ্চ পৃষ্ঠপোষকতা এবং দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা দিয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতা করব। ইনশাআল্লাহ। তিনি আশ্বস্ত হলেন। অনেক খুশি হলেন।
আমি জানতে চাইলাম,

আপনি কি করেন?

তিনি একজন ব্যবসায়ী এবং হবিগঞ্জের একজন বড়মাপের শ্রমিকনেতা। আমার একটু খটকা লাগলো।

একজন শ্রমিক নেতা সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ বিষয়ে তিনি খবর নিচ্ছেন!

জিজ্ঞেস করলাম, কে প্রশিক্ষণ করতে আগ্রহী?

তিনি বললেন তিনি নিজেই।

আমি আরো অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলাম আপনার বয়স?
বললেন ৫০ প্লাস।

আমি বললাম মানে?

তিনি বললেন ষাটের কাছাকাছি। আমি বললাম এই বয়সের একজন মানুষ এতদূর থেকে এসে সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ এবং নিয়মতান্ত্রিকতা মেনে চলা কঠিন।

আপনার ধৈর্যে কুলোবেতো?

তিনি বললেন, আমি পুরোপুরি প্রস্তুত! আপনাদের কর্মশালায় অংশগ্রহণ করতে।

আমি তখন এড়িয়ে যাওয়ার বাহানায় বললাম আসলেতো আমরা নবীনদের নিয়ে কাজ করতে চাই!

প্রবীণদের জন্য পরবর্তীতে চিন্তা করব।

তিনি আমাকে বললেন, আমিতো অলরেডি জাতীয় দৈনিকের আঞ্চলিক প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি! আমি কি পারবো এখানে অংশগ্রহণ করতে?

আমার কপালে ভাঁজ পড়ল। কি বলেন তিনি?

তিনি আরো বললেন,যে আমি চলমান অনেক মিডিয়ার সাথে জড়িত আছি। আমি কি আপনাদের কর্মশালা থেকে শুধু বয়সের কারণে বঞ্চিত হব?

আমার ভাবনার মোড় ঘুরে গেলো।

আমি বললাম, স্যরি ক্ষমা করবেন আপনাকে চিনতে পারিনি।

অবশ্যই আপনি পারবেন আমাদের সঙ্গী হতে।

আপনার রেজিস্ট্রেশন আগে হবে ইনশাআল্লাহ। আপনি কর্মশালা আসবেন। দুই দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে লাগাতার প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবেন। এর পরবর্তীতে আপনি মিডিয়ায় আরো জোরালোভাবে কাজ করবেন। অনেক খুশি হলেন। সাথে সাথে রেজিস্ট্রেশন করালেন।

তার স্বপ্ন জানতে চাইলাম!

অত্যন্ত আক্ষেপের সাথে বললেন- যে, বাংলাদেশে আজকে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম উপেক্ষিত হওয়ার অন্যতম একটি বড় কারণ হচ্ছে- মিডিয়াতে আমাদের দখল নাই।
এই বিশাল ঘটনা থেকে আমি বুঝলাম,

একটা মানুষের প্রতিভা তাকে দমিয়ে রাখতে পারে না। তাকে বন্দী রাখতে পারেনা।

প্রতিভার উন্মাদনা একটা মানুষকে সমাজে তার জায়গা করে দিবেই।

সুতরাং আগামী ১২ ও ১৩ তারিখের দুইদিনব্যাপী সাংবাদিকতার বুনিয়াদী কর্মশালা প্রতিভাবানদের স্বাগতম!

শেষদিকে আমার চোখ ভিজে উঠলো আসলেই আমরা কত গাফেল! আরো দশ বছর আগে কেনো আমাদের এই উপলব্ধিবোধ জাগ্রত হলো না!

লেখক : রাজনীতিক

No photo description available.

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com