মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:২৭ পূর্বাহ্ন

রিফাত হত্যা, আমরা মানুষ কতটুকু?

রিফাত হত্যা, আমরা মানুষ কতটুকু?

রিফাত হত্যা, আমরা মানুষ কতটুকু?

মাওলানা আমিনুল ইসলাম : বড় দুঃখ- ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আজকে এই লেখাটি লিখছি। আমাদের সমাজ, আমাদের এই জাতি এত অধঃপতনে যাবে ভাবতে পারিনি। দিনে -দুপুরে একজন মানুষকে কুপিয়ে হত্যা করা হল, আর কিছু লোক দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে শুধু তামাশাই দেখল!! কেউ প্রতিবাদ করতে এগিয়ে এলো না। আবার কেউ তাকে সাহায্য করতে গেল না।
আমাদের মনুষ্যত্ব বোধ কি একদম হারিয়ে গেল? আমরা কি এখন আর মানুষের কাতারে নেই?

আসলে আমাদের সমাজ কোথায় চলে গেছে, সেটা ভাবার বিষয়। কোন অবস্থার মধ্যে আমরা বসবাস করছি, সেটা চিন্তা করার বিষয়।

তবে আমি একটা বিষয় লক্ষ্য করলাম, বর্তমানে যত অঘটন ঘটছে। যত মার্ডার,খুন হচ্ছে। এর অধিকাংশ খুন- খারাবী, হত্যাকাণ্ড , মেয়েলী বিষয়কে কেন্দ্র করে। অধিকাংশ প্রেম ঘটিত বিষয় নিয়ে।
এই নুসরাত হত্যাকান্ড। সেখানেও প্রেম – প্রীতি। অধ্যক্ষের লালসার শিকার হয়েছিল মেয়েটি। যার কারণে তাকে প্রাণ দিতে হল।

আর এই যে বরগুনায় যা ঘটল, এটা স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে সবার সামনে। এখানেও প্রেম – প্রীতি। এক মেয়েকে নিয়ে কয়েকজনের টানাটানি। যাকে কেন্দ্র করে নৃশংস ঘটনা ঘটে গেল।

এরকম অহরহ ঘটছে এখন আমাদের দেশে। নারীকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন দৃর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। ধর্ষণের পরে হত্যার মত জঘন্যতম কাজে লিপ্ত হচ্ছে মানুষ।
তবে এখানে আমার যা মনে যাচ্ছে, এই বিষয় গুলো থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে, দুইটা জিনিস খুব বেশী আমাদের বেশী প্রয়োজন।

এক, এসব ঘটনায় যারা জড়িত, তাদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি হওয়া চাই। যাতে আইনের ফাঁক-ফোঁকর দিয়ে বেরিয়ে যেতে না পারে, সে বিষয়ে খেয়াল রাখা চাই।

দুই, আমাদের চরিত্রের পরিবর্তন ঘটাতে হবে। দুঃশ্চরিত্র মানুষ গুলোকে হেদায়েতের ছায়া তলে আনা প্রয়োজন।

চরিত্র যদি কারো ভাল না হয় , ওকে কোন আইন- আদালতে নিয়ে কাজ হয় না। অবৈধ প্রেম – ভালবাসা মানুষকে অনেক নিচে নামিয়ে দিচ্ছে। এসব প্রেম- প্রীতি মানুষকে আস্তে আস্তে বিপদে ঠেলে দিচ্ছে।
আমরা এই একাবিংশ শতাব্দিতে এসে, প্রেম- ভালবাসাকে যেন জায়েযের খাতায় নিয়ে এসেছি। এখন আর এটাকে কেউ খারাপ চোখে দেখেনা!!

পালন হয় আমাদের দেশে প্রেম দিবস,ভালবাসা দিবস। এক শ্রেণীর সামাজিক সংগঠন, বিভিন্ন এন জিও, এসব দিবস গুলোকে তারা পালন করে। আমাদের সন্তানেরা সে সব কর্মকাণ্ডগুলো পালন করে আরো উৎসাহ পায়। রাজধানী ঢাকা থেকে নিয়ে সারাদেশের সব জায়গায় এসব দিবস, এসব অসামাজিক রীতি- নীতির হাওয়া লেগেছে।

কথায় বলে, “এমনিতে নাচুনে বুড়ি,তারপর আবার ঢোলের বাড়ি”

যু্বক- যুবতীদের এমনিতে ঠেকানো যায় না। তারপর যদি তাদেরকে উথলে দেওয়া হয়, আবার যদি তাদের সুড়সুড়ি দেওয়া হয়, তাহলে তো তাদের ঠেকানো সম্ভব নয়।

আজকাল স্কুল,কলেজ, ভার্সিটির পরিবেশ আগের তুলনায় অনেক নিম্নে চলে গেছে। আগে অনেক শালীনতা, ভদ্রতা, দেখা যেত। কিন্তু বর্তমানে আদব আখলাক ওয়ালা ছাত্র -শিক্ষকের বড় অভাব।

এখন ছেলে- মেয়েরা এক সাথে আড্ডা জমালে কেউ আর মাইন্ড করেন না। রাস্তা দিয়ে ছেলে- মেয়েরা হৈচৈ করে বেড়ালে কেউ কিছু বলার সাহস পায় না।

এখন ছেলেদের জন্য রয়েছে, একাধিক মেয়ে বন্ধু। যাকে বলা হচ্ছে, গার্ল ফ্রেন্ড। আবার মেয়েদের রয়েছে অনেক ছেলে বন্ধু। যাদের বলা হয়, বয় ফ্রেন্ড।

এসব গার্ল ফ্রেন্ড আর বয় ফ্রেন্ডে যত সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। বন্ধুত্বের ওছিলায় অনৈতিক কাজের সাথে জড়িয়ে পড়ছে তারা।

বন্ধু- বান্ধব মিলে প্রেম- প্রীতি ভালবাসা করতে গিয়ে নানান দুর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে অহরহ।

ছাত্র – ছাত্রীদের নৈতিক অবক্ষয় দেখা দিয়েছে চরম ভাবে। দেশ ব্যাপী মহামারি আকারে ধারণ করেছে এসব বিষয় গুলো।

এজন্য চরিত্রের পরিবর্তন ঘটাতে হবে। উত্তম আখলাক গঠন করা প্রয়োজন। ছাত্র- ছাত্রীদের অবাধ মেলা – মেশার সুযোগ বন্ধ করা দরকার।

আমাদের গার্জিয়ানদের অবহেলা আছে অনেক। আমরাও সন্তানদের ব্যাপারে বে- খবর। তারা কোথায় যাচ্ছে? তারা কার সাথে ঘোরাঘুরি করে,এসব বিষয় আমরা খেয়াল করি না।

প্রত্যক গার্জিয়ানের উচিত, ছোট বেলা থেকে সন্তানদের খোঁজ খবর নেওয়া। তাদেরকে উপযুক্ত আদব – আখলাক শিক্ষা দেওয়া।

আমরা যদি উত্তম আখলাক ওয়ালা মানুষ তৈরী করতে পারি, তাহলে এসব দুর্ঘটনা কমে যাবে বলে আশা করা যায়। আল্লাহর ভয় মানুষের মাঝে সৃষ্টি হলে, সে মানুষটি কখনো এসব খুন- খারাবীর রাস্তা বেছে নিতে পারে না।

এমনি ভাবে কোন অন্যায় কাজের কঠিন শাস্তি হলে, এবং অপরাধী কোন ভাবে ছাড়া না পেলে, সে সব দেখে মানুষ অনেক পরিবর্তন হয়ে যায়।

কিন্তু অপরাধী কোন কারণে ছাড়া পেয়ে যায়, তাহলে অনাচার বাড়তেই থাকবে।

লেখক : শিক্ষক ও সমাজ বিশ্লেষক

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com