শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ০৬:৪০ পূর্বাহ্ন

মেনগ্রিয়ার ছোট্ট পরি : এক মলাটে ভিন্নরকম স্বাদ!

মেনগ্রিয়ার ছোট্ট পরি : এক মলাটে ভিন্নরকম স্বাদ!

সাহিত্য । সাজ্জাদ হুসাইন

মেনগ্রিয়ার ছোট্ট পরি : এক মলাটে ভিন্নরকম স্বাদ!

লেখক নকীব মাহমুদ এর গল্পের সঙ্গে বেশ আগে থেকেই পরিচয় আছে পাঠকের। শুরুতে ছড়া আর কিশোর কবিতায় নিজের মেধার পরিচয় দিলেও হঠাৎ করেই যে গল্পের ভূবনে ‘উড়ে এসে জুড়ে বসেছেন’ তা কিন্তু নয়। ছড়া আর কিশোর কবিতার পাশাপশি গল্পেও হাত চালিয়েছেন সমানতালে। তবে গল্পে একেবারে থিতু হননি। কিন্তু বেলা যত গড়িয়েছে ততই যেন অন্য এক নকীব মাহমুদকে আবিস্কার করতে লাগলো বাংলা ভাষাভাষী পাঠকেরা। পাঠক ভালোবাসায় বুকে জড়িয়ে নিতে লাগলো গল্পকার নকীব মাহমুদকে। নকীব মাহমুদও পাঠকের ভালোবাসার প্রতিদান দিতে লাগলেন তার লিখনীর মাধ্যমে। একে একে প্রকাশ করতে লাগলেন গল্প, কিশোর উপন্যাস, আর ছড়ার বই। এমনকি প্রিয় নবিজিকে নিয়ে লিখে ফেললেন প্রায় দু’শো পৃষ্ঠার একটি গল্পভাষ্য!

অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০। এই বইমেলাতেই প্রকাশিত হয়েছে শিশুসাহিত্যিক নকীব মাহমুদ এর ‘মেনগ্রিয়ার ছোট্ট পরি’ গল্পগ্রন্থটি। আমি নিঃসন্দেহে বলতে পারি, গল্পের পাঠক যারা বইটি তাদের ভীষণ ভালো লাগবে। বইটিকে লেখক নকীব মাহমুদ মোট এগারটি শিরোনামে সূচিবদ্ধ করেছেন। সবগলো গল্পই ভিন্ন ভিন্ন্ স্বাদের। অ্যাডভেঞ্চার, রহস্য, হরর, মুক্তিযুদ্ধ, সায়েন্স ফিকশন, ধর্মের নামে অধর্মÑ নকীব মাহমুদ সবকিছু তুলে ্এনেছেন একেবারে এক মলাটের ভেতর। ‘মেনগ্রিয়ার ছোট্ট পরি’ পড়লে মনে হবে, আরে এত জীবনেরই গল্প!

প্রথম গল্পাটির শিরোনাম ‘অপারেশন বাঘমারা’। গল্পের শিরোনামেই কেমন যেনো একটা অ্যাডভেঞ্চারের গন্ধ মিশে আছে। যে কোনো পাঠককেই গল্পের ভেতরে টেনে নিয়ে যেতে সক্ষম শিরোনামটি। গল্পটিতে পাঠক জানতে পারবে কোন এক পৌষের কনকনে শীতের রাতে গ্রামের কয়েকজন তরুনের দুঃসাহসিক এক অভিযানের কথা। বাঘকে খাঁচায় বন্দি করা কি চাট্টিখানি কথা! এই তরুনেরা যে তাই করে দেখালো! কিন্তু বাঘ মেরে সারারাত বিজয় মিছিল করার পর সকালে এমন কি হয়ে গেলো যে গ্রামের সবাই ওদের প্রশংসা না করে উল্টো ওদের দেখে হাসতে লাগলো?

সে এক মজার কাণ্ড!

দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করে অনেক রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই বাংলাদেশের কথা আমরা বুক ফুলিয়ে বলে বেড়াই সবার কাছে। মুক্তিযুদ্ধের কথা মনে হলেই একাত্তরের সেই ভয়ংকর দিনগলোর ছবি ভেসে ওঠে আমাদের চোখের সামনে। আমরা যারা ছোট, যারা দেখিনি সেই উত্তাল একাত্তর, তারা জানবো কেমন করেÑ কী বীরের মতো লড়াই করে তবেই না আমাদের বীর সেনারা ছিনিয়ে এনেছে লাল সবুজের এই পতাকা! গল্পকার নকীব মাহমুদ তার মেনগ্রয়ার ছোট্ট পরি বইটিতে ‘বাবা আসে ফিরে ফিরে’ শিরোনামের গল্পটিতে একাত্তরের সেই উত্তাল সময়ের একটি চমৎকার ছবি এঁকেছেন। গল্পটি পাঠকের হৃদয়ে এক অন্যরকম জায়গা করে নেবে।

‘ভয়ংকর এক রাত’ শিরোনামের গল্পটি পড়ার পর মনে হবে যে মাত্রই দুঃস্বপ্ন দেখে ঘুম থেকে উঠলাম। ভয়ে গায়ের সবক’টা পশম দাঁড়িয়ে যাবে। কেউ কেউ হয়তো সাহস করে গল্পের নায়ক সহজ-সরল সেই রফিক মিয়াকে দেখতে চাইবে এক নজর। মুহূর্তের জন্যে ভূলে যাবে, আরে, এত গল্প! কখনো কখনো মনে হবে- আসলেই কি গল্প এটা?

‘স্বপ্ন মৃত্যু এবং শোক’ গল্পটিতে উঠে এসেছে বাংলাদেশের সবচে’ বড় যে শিল্প- গার্মেন্টস, সেই গার্মেন্টেসের করুণ এক ট্রাজেডির কথা। ২০১৩ সালে ঢাকার সাভারে ভয়াবহ গার্মেন্টস ধ্বসের কথা সবারই জানা। সেই গার্মেন্টস ধ্বসের ভয়ংকর একটি হৃদয় বিদারক চিত্রই যেনো ‘স্বপ্ন মৃত্যু এক শোক’ গল্পটি। গল্পটিতে উঠে এসেছে একজন অসহায় গার্মেন্টস কর্মী মিলির স্বপ্নের কথা। ছোটবোন পড়াশোনা করে অনেক বড় মানুষ হবে। কত কত স্বপ্ন মিলির! কিন্তু সেই স্বপ্ন কি পূরণ হয়েছে মিলির? সেই চিত্রই উঠে এসেছে নকীব মাহমুদ এর স্বপ্ন মৃত্যু এবং শোক নামের গল্পটিতে।

‘নিয়তি’ গল্পে উঠে এসেছে একজন অসহায় খাইরুল মাওলানার কথা। যে কি না জীবনে জড়াতে চাননি অহেতুক ঝুট-ঝামেলায়। কিন্তু সবই তো নিয়তি। নিয়তিই শেষ পর্যন্ত তাকে নিয়ে আসে গ্রাম থেকে শহরে। স্ত্রীকে নিয়ে অসহায়ের মতো ঘুরে বেড়ান ঢাকার পথে পথে। ছেলে ইমতিয়াজকে ভয়ংকর এক অভিযোগে গ্রেফতার করে আইন শৃংখলা বাহিনি। ইমতিয়াজের খোঁজে জেল থেকে জেলে পাগলের মতো ছুটে যান খাইরুল মাওলানা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কি ছেলে ইমতিয়াজের সঙ্গে দেখা করতে পেরেছিলেন খাইরুল মাওলানা?

‘মানুষের পীর’ গল্পটিতে উঠে এসেছে সমাজের সবচে’ তিক্তকর সেই সত্যটি। ধর্মীয় লেবাস পরে ধর্মীয় বুলি আউড়ানো সেই ভন্ডদের মুখোশ উন্মোচিত হয়েছে গল্পটিতে। ¯্রােতের বিপরীতে গিয়ে গল্পকার নকীব মাহমুদ নিঃসংকোচে চালিয়েছেন তার কলম। বলেছেন সাহস করে অপ্রিয় এমন সব কথা যেগুলো বলার মতো এরকম কাউকেই খুঁজছিলেন সবাই। বুকে হাত দিয়ে বলতে পারি, গল্পটি নাড়িয়ে দেবে জালিমের মসনদ। খুলে দেবে লেবাসী ভ-দের মুখোশ।

এ ছাড়াও বইটিতে ‘গোয়েন্দা রুকু ও ম্যাকাও রহস্য’ নামে মজার একটি গল্প এনেছেন নকীব মাহমুদ। শন্তুমামার সঙ্গে সাফারি পার্কে ঘুরতে গিয়ে এক জটিল রহস্যের ভেতর আটকে পড়ে রুকু এবং নাঈম। হঠাৎই মিউজিয়াম থেকে চুরি হয়ে যায় লাখ টাকার পাখি ম্যাকাও। এতগুলো চোখ ফাঁকি দিয়ে এত বড় চুরিটা করলোই বা কে? তদন্তে নামে শন্তুমামার টীম। এবং শেষ পর্যন্ত সাকসেস হয় গোয়েন্দা রুকু, নাঈম আর শন্তুমামা। একরকম অ্যাডভেঞ্চারের ভেতর দিয়ে এগিয়ে গেছে পুরো গল্পটি। গোয়েন্দা গল্পের পাঠক যারা ‘গোয়েন্দা রুকু ও ম্যাকাও রহস্য’ গল্পটি তাদের পাঠের প্রথম তালিকায় থাকবে বলে আমি আশাকরি।

এ ছাড়াও ‘এই রোদ এই মেঘ’, ‘ক্ষ’, ‘ফুলি’, শিরোনামের চমৎকার কিছু গল্প সূচিবদ্ধ হয়েছে। সবগুলো গল্পই পাঠককে মোহিত করবে। বিশেষ করে শেষের গল্পটি। সায়েন্স ফিকশন যারা ভালোবাসেন আমি মনে করি গল্পটি পাঠকের মনে আলাদা একটা আবেদন সৃষ্টি করবে। ছোট্ট পরির সঙ্গে কাল্পনিক গ্রহ মেনগ্রিয়ায় যাওয়ার জন্যে উদগ্রীব হয়ে উঠবে পাঠকের মন।

বইটি প্রকাশ করেছে দাঁড়িকমা প্রকাশনী। অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ৬৯৮ নং স্টলে পঁচিশ পার্সেন্ট ছাড়ে মাত্র একশ টাকায় কিনতে পারবে পাঠক। ভালোবাসা নকীব মাহমুদ এর জন্য।

গল্পরহস্যের দারুণ এক চাদর মেলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন নকীব মাহমুদ। আমরা আশা করছি, পাঠকপ্রিয়তা পাবে বইটি।

লেখক : গল্পকার।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com