শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

বীরগঞ্জে ইসলাহুলের জমকালো ২০ জোড়া যৌতুকবিহীন বিয়ে অনুষ্ঠিত

বীরগঞ্জে ইসলাহুলের জমকালো ২০ জোড়া যৌতুকবিহীন বিয়ে অনুষ্ঠিত

বীরগঞ্জে ইসলাহুলের জমকালো ২০ জোড়া যৌতুকবিহীন বিয়ে অনুষ্ঠিত

শীলন বাংলা রিপোর্ট : দিনাজপুর ০১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেছেন, ইসলাহুল মুসলিমীন পরিষদ মানবতার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। যৌতুকবিহীন বিবাহ প্রদান একটি দারুণ অনুষ্ঠান।

তিনি বলেন, আমি ধন্যবাদ জানাই আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ সাহেবকে। তিনি কেবল একজন ব্যক্তি নন পৃথিবীর রোল মডেল। তিনি প্রমাণ করেছেন ইসলাম শান্তির, মানবতার উপকার আসে। কিন্তু এ দেশে একটা দল কেবল দেশে অশান্তির কাজ করে যাচ্ছে। নির্বাচন এলে ইসলাম দিয়ে তারা ব্যবসা করতে চায়।

মনোরঞ্জন শীল গোপাল আরও বলেন, যৌতুক একটি সামাজিক ব্যাধি। আর এ ব্যাধি দূর করার জন্য সরকার প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। সরকারের পাশাপাশি সকলে যৌতুকের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালে সামাজিক অবক্ষয়ের হাত থেকে মুক্ত হবে সমাজ। যৌতুক দেয়া কিংবা নেয়া ধর্মীয়ভাবেও নিষিদ্ধ। এ ধরনের বিয়ে সেই বার্তায় পৌঁছে দেবে প্রতিটি ঘরে ঘরে।

শুক্রবার জুমার পর দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ইসলাহুল মুসলিমীন পরিষদ বাংলাদেশের উদ্যোগে দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার বটতলী মাদরাসা প্রাঙ্গণে বিশজোড়া যৌতুকবিহীন বিবাহ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

বীরগঞ্জ উপজেলা ওসি (তদন্ত) বলেন, আমি আমার চাকরি অভিজ্ঞতায় সারা বাংলাদেশ গুড়েছি কিন্তু এরকম প্রোগ্রাম যৌতুকবিহীন গণবিবাহ আমি কোথাও দেখিনি।
এছাড়াও বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম। তিনি বলেন, আজকে আমরা সত্যিই আনন্দিত সত্যিকারের ইসলাম যে কি সেটা আমরা উপলব্ধি করতে পারলাম। ইসলাম এই শিক্ষায় দেয় মানুষের পাশে দাঁড়ানো। ইসলাহুলের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়ামিন হোসেন বলেন, আমার জীবনে এক নতুন অভিজ্ঞতা আমি প্রথমে অবাক হয়েছি কেন ছাগল কেন? তারপর আরো মালামাল দেখে আমি অনেক খুশি হয়েছি সংসার সাজানোর মতো সবকিছুই দেওয়া হচ্ছে।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ইসলাহুলের দিনাজপুর প্রতিনিধি মাওলানা আইয়ুব আনসারি। সঙ্গে ছিলেন ইসলাহুলের সহকারী প্রোগ্রাম অফিসার দিদারুল ইসলাম তারেক।

প্রসঙ্গত, শায়খুল হাদীস, ঐতিহাসিক শোলাকিয়ার গ্র্যান্ড ইমাম ও খতিব আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ (দা.বা.) কর্তৃক পরিচালিত ইসলাহুল মুসলিমীন পরিষদ দীর্ঘদিন যাবত বাংলাদেশের অসহায় দরিদ্র মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করে আসছে। যৌতুকের অভিশাপ থেকে সমাজকে মুক্ত করার আন্দোলনের অংশ হিসাবে প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও কন্যাদায়গ্রস্ত অসহায় পরিবারের কন্যাদের বিবাহের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সহযোগিতার মাধ্যমে নবদম্পতিদেরকে আত্মনির্ভর ও নৈতিকভাবে আত্মবিশ্বাসী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য এটি একটি চলমান কর্মসূচি। এই লক্ষ্যে দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার বটতলী মাদরাসা প্রাঙ্গণে কন্যাদায়গ্রস্ত অসহায় পরিবারের ২০ জন কন্যার বিবাহ অনুষ্ঠান দেয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com