মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৩২ পূর্বাহ্ন

‘প্রবল আত্নবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই’

‘প্রবল আত্নবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই’

বর্তমান প্রজন্মের তরুণ লেখকদের অন্যতম আবুদ্দারদা আব্দুল্লাহ। রম্য ধাচের লেখা লেখতে ভালবাসেন। অমর একুশে বইমেলায় ‘সুবোধও অন্যান্য’, এবং ‘হিজড়া’ দুই দুইটি বই বেরিয়েছে তার। ইতিমধ্যে পাঠকমহলে হিজড়া বইটি নিয়ে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে। এর আগেও ‘অবাক দৃষ্টি’ নামক বই লিখে শক্তপোক্তভাবেই প্রতিভার বিকাশ জানান দিয়েছেন তিনি। এমন একজন প্রতিভাবান তরুণ লেখকের মুখোমুখি হয়েছেন আল আমীন মুহাম্মাদ

প্রশ্নঃ- লেখালেখিতে কিভাবে সম্পৃক্ত হলেন
শীলনবাংলা : লেখালেখিতে সম্পৃক্ত হয়েছি আমার শ্রদ্ধেয় অগ্রজ আইয়ুব জামশেদ ভাইয়ের কল্যাণে। খুবই উৎসাহ দিতেন। ইকরা সাহিত্য সংসদের তখনকার দায়িত্বশীল মুফতি ফয়জুল্লাহ আমান সাহেবও ছিলেন আমাকে উৎসাহ দেয়ার কাতারে। তার মত মানুষের উৎসাহেই লেখালেখির সাথে সম্পৃক্ত হওয়া। এখনো উৎসাহ পাচ্ছি। আমি খুবই ভাগ্যবান।


মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়” বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদের এই কথাটা খুবই ভালো লাগে। এই কথাটা থেকে অনুপ্রেরণা পাই, স্বপ্ন দেখি।


প্রশ্নঃ- আপনার বই সম্পর্কে কিছু জানতে চাই

প্রশ্ন:- লেখালেখি নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা বা স্বপ্ন সম্পর্কে কিছু বলেন?
শীলনবাংলা : লেখালেখি নিয়ে প্রত্যেকটা লেখকেরই আকাশছোঁয়া স্বপ্ন থাকে। উত্তরসূরীদের ছাড়িয়ে যাওয়ার স্বপ্নও অনেকের থাকে।

তবে দুঃখজনক হলেও সত্য, অনেক লেখক উৎসাহ না পাওয়ার কারণে অল্প সময়ের মধ্যেই ঝড়ে পড়েন। তার স্বপ্নিল স্বপ্নটা অংকুরেই মাঠে মারা যায়। কোন উঠতি বয়সী লেখক আমার কাছে পরামর্শ চাইলে তাকে বলি, তুমি তোমার মত লিখে যাও আর বড় বড় আকাশছোঁয়া স্বপ্ন দেখতে থাকো। কারণ যে মানুষের স্বপ্ন নেই সে একটা মৃত মানুষ।” মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়” বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদের এই কথাটা খুবই ভালো লাগে। এই কথাটা থেকে অনুপ্রেরণা পাই, স্বপ্ন দেখি।

প্রশ্নঃ- আপনার বই সম্পর্কে কিছু জানতে চাই
শীলনবাংলা : আমার প্রথম বই অবাক দৃষ্টি বের হয়েছিলো ২০১৭ সালে। যেহেতু রম্য লিখি তাই প্রথম বইটা থেকে ব্যাপক সাড়া পেয়েছিলাম। আমার শিক্ষা গুরু মুফতি ফয়জুল্লাহ আমান সাহেব একদিন আমাকে উদ্দেশ্য করে তার একটা স্বপ্নের কথা ব্যক্ত করলেন, শোনো দারদা, আমাদের একজন শক্তিশালী রম্য লেখক দরকার। আশা করি, তুমি পারবে।

এরপর থেকে সহজ এবং স্বাভাবিক ভাষার সংলাপযুক্ত ধারাবাহিক রম্য লেখা শুরু করি। এবারের একুশে বইমেলাতে দুইটা বই প্রকাশিত হয়েছে, দুইটাই কিন্ত রম্য। হিজড়া নামের উপন্যাসটা ছেপেছে বিখ্যাত প্রকাশনা সংস্থা ঐতিহ্য আর সুবোধ ও অন্যান্য বইটা ছেপেছে ইনভেলাপ পাবলিকেশন্স। পাঠকদের থেকে ভালোই সাড়া পাচ্ছি। একজন নতুন লেখক হিসেবে যা অকল্পনীয়।

প্রশ্নঃ- পাঠকবৃন্দ কেন পড়বে আপনার বই?
শীলনবাংলা : এই প্রশ্নের উত্তর দেয়াটা আসলে বেশ কঠিন।স্বাভাবিক ভাবে মানুষ জানার জন্যই বই পড়ে। তবে প্রযুক্তিনির্ভর মানুষ কিন্ত এখন খুবই সচেতন। বাস্তব,অবাস্তবের পার্থক্য স্বাভাবিকভাবেই ধরে ফেলতে পারে। যার কারণে মানুষের চাহিদার দিকে লক্ষ্য করেই সহজ, সাবলীল ভাষায় লিখছি যাতে করে মানুষ বই পড়ার দিকে মনোনিবেশ করে, বইয়ের প্রতি আগ্রহ জন্মে। একটা সময় কলকাতার শরৎচন্দ্রের বই পড়তো কিন্ত এখন যুগ পাল্টেছে। বাংলাদেশি লেখকদের এখন বাজার তৈরী হয়েছে। নিজের দেশের কথাই তো আমি লিখছি। দুর্নীতি হচ্ছে তাই দুর্নীতির বিরুদ্ধে বলছি। ক্ষমতার অপব্যবহার হচ্ছে তাই এরকম ক্ষমতার বিরুদ্ধে লিখছি। যখন যেই টপিকটা সামনে আসছে সেটা বাস্তবতার নিরিখে সহজ স্বাভাবিক জড়তা মুক্তভাবে রম্যের ভাষায় লিখছি। পাঠক মজা পাবে বলেই লিখছি। যা কিছুই লিখি সর্বদা পাঠকের চাহিদানুযায়ী লিখতে চেষ্টা করি। আমি কতটুকু সফল তা পাঠকরাই বলে দিচ্ছেন। তবে আমি সৌভাগ্যবান এই কারনে যে, পাঠকের কাছ থেকে আজ পর্যন্ত বিরূপ কোন প্রতিক্রিয়া পাইনি।

প্রশ্ন : লেখালেখির ময়দানে অগ্রসর হওয়ার জন্য তরুণ প্রজন্মের প্রতি আপনার পরামর্শ কী?
শীলনবাংলা : তরুণ প্রজন্মের অনেক লেখক আছেন যারা লেখালেখি বাদ দিয়ে নিজের আত্নসমালোচনায় বেশি মগ্ন থাকেন। নিজের লেখার প্রতি কোন আত্নবিশ্বাস নেই, অন্তরে নিজের প্রতি বিদ্বেষ জন্মে।
অনেকেই বলেন, ভাই, লেখক হতে চাই কিন্ত ক্যামনে? আমি তাদেরকে বিনয়ের সাথে আমার লেখালেখি শুরুর কাহিনীটাই বলি। নিয়মিত রোজনামচা লেখা কমপক্ষে এক বছর দুই বছর হলে আরো ভালো। তারপরে যেই লাইনে যেতে পছন্দ সেই লাইনে সে লেগে পড়বে। ছড়া, কবিতা, গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ, নিবন্ধ, ফিচার ইত্যাদি। তবে একজন বড়মাপের লেখক হওয়ার জন্য গভীরভাবে আত্ননিয়োগ করতে হবে। বাংলা সাহিত্যের গ্রেটদের বই যেমন পড়তে হবে তেমন নবীনদের বইও পড়তে হবে। নবীন লেখকদের লেখা থেকেও একজন উঠতি বয়সের অনেক কিছু্ শেখার থাকে। এই নবীনরাই তো একদিন রবিন্দ্রনাথের মত বড়মাপের কিছু হবেন, তাই না? সুতরাং নবীনদের লেখাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com