শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন

‘নুসরাতসহ সকল হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে’

‘নুসরাতসহ সকল হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে’

‘নুসরাতসহ সকল হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে’

শীলন বাংলা রিপোর্ট : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য, বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদাররেসীনের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও চরমোনাই কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল অধ্যক্ষ মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী ফেনীর সোনাগাজীর মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার মূল হোতা সিরাজ উদ দৌলাসহ জড়িত সকলকে কঠোর শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন।

১৫ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, নুসরাতকে যৌন নিপীড়নকারী মাদরাসার অধ্যক্ষসহ দোষীরা যেন কোনভাবেই রেহাই না পায় সে জন্য সরকারকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়ন দেশে মহামারী আকার ধারণ করেছে। দেশের আনাচে-কানাচে প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও নারী ও শিশু খুন, ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। কিন্তু ঘাতকরা আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে বের হয়ে যাওয়ার কারণে যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণ থামছে না।

ফেনী সোনাগাজীর সিরাজ উদ দৌলা নামক কুখ্যাত নরপিশাচের যৌন লালসার শিকার হয়ে মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিদের জীবন দিতে হয়েছে। আর কোনো নুসরাতের পরিণতি দেখতে চাই না। তাই দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের মাধ্যমে নুসরাতের ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। তিনি বলেন, এই নরপিশাচ মাদরাসা শিক্ষাকে প্রশ্নবিদ্য ও হেয় করেছে। তার শাস্তি হতে হবে। তিনি বলেন, শোনা যাচ্ছে সোনগাজী থানা ওসি এবং স্থানীয় আওয়ামীলীগ দোষীদেরকে রক্ষায় মরিয়া হয়ে উঠছে। তিনি বলেন, কথাবার্ত পরিস্কার, নুসরাতের হত্যাকান্ডের বিচার নিয়ে কোন প্রকার তাল-বাহানা হলে দেশের সর্বত্র আন্দোলনের দাবানল জ্বলে উঠবে।

তিনি বলেন, স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়সহ যেখানেই যৌন নিপীড়নের মত ঘটনা ঘটবে, যারা এর সাথে জড়িত তাদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে এবং জড়িত শিক্ষককে আজীবনের জন্য বহিস্কার করতে হবে।

এদিকে নীতিমালা লঙ্ঘন, শৃঙ্খলা ভঙ্গ এবং সংগঠনের নীতি ও আদর্শ পরিপন্থী কার্যকলাপে লিপ্ত থাকার অপরাধে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ জেলার সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সি ও গোপালগঞ্জ জেলা সভাপতি মুফতী শেহাবুদ্দিনকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সকল দায়িত্বসহ প্রাথমিক সদস্যপদ থেকেও বহু আগেই বহিষ্কার করা হয়েছে।

১৫ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার এক বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেন, বার বার সতর্ক এবং আত্মপক্ষের সুযোগ দেয়ার পরও সতর্ক না হওয়ায় তাকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকেও বহিস্কার করা হয়েছে। আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সির সাথে কোন প্রকার সম্পর্ক না রাখার জন্য ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, সকল সহযোগি সংগঠন ও তাদের সকল শাখা সংগঠনকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com