সোমবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৯, ১২:২৩ পূর্বাহ্ন

নির্মল শিল্পসাহিত্যের পথ দেখায় শীলন বাংলাদেশ

নির্মল শিল্পসাহিত্যের পথ দেখায় শীলন বাংলাদেশ

নির্মল শিল্পসাহিত্যের পথ দেখায় শীলন বাংলাদেশ

শীলন বাংলাদেশের ১০৮তম সাহিত্য আড্ডা অনুষ্ঠিত

শীলন বাংলা রিপোর্ট : ‘নিজেকে গড়ি’ স্লোগান নিয়ে সৃজনশীল লেখালেখির সংগঠন শীলন বাংলাদেশের ১০৮তম সাহিত্যসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজধানীর পশ্চিম রামপুরায় মাদরাসা উসমান মিলনায়তনে শুক্রবার (১৯ জুলাই) দিলিরোড মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা আবু বকর সাদীর সভাপতিত্বে সকাল ১০টায় শুরু হয় এ সাহিত্যসভা।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নজরুল গবেষক কবি মহিউদ্দিন আকবর। বিশেষ অতিথি ছিলেন, দারুল উলূম রামপুরার সিনিয়র মুহাদ্দিস মাওলানা জামিল আহমদ, কথাসাহিত্যিক হাসান রাউফুন। পঠিত লেখার উপর উপভোগ্য আলোচনা করেন কবি শামস আরেফিন এবং ছড়াশিল্পী-গীতিকার সায়ীদ উসমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মুহিবুদ্দীন দিদার। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন কবি আদিল মাহমুদ।

শীলন বাংলাদেশের সাহিত্যসভায় লেখার পাঠ করেন, মাসউদুল কাদির, শামস আরেফিন, আফজাল হোসাইন, সাঈদ উসমান, মুহিবুদ্দীন দিদার, কাজী সিকান্দার, আদিল মাহমুদ, লুৎফুর রহমান রিফাত, মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন, আহমদ কাশফী, আহসান হাবীব, হাবীবুর রহমান, তোফায়েল আহমদ শিহাব, আবু সাঈদ, শফিকুর রহমান, মাহদী হাসান, জামাল উদ্দীন, জামীল আহমদ প্রমুখ।

এছাড়াও উল্লেখযোগ্যদের মধ্যে সাহিত্য আড্ডায় উপস্থিত ছিলেন, মাহবুবুর রহমান, রাশেদ হাসান, আতাউর রহমান খান, তামীম আহমদুল্লাহ, মুহাম্মদ সুলাইমান, আবু সাঈদ, শফিকুর রহমান, মুহাম্মদ আসআদ প্রমুখ।

পঠিতলেখার উপর বিশেষ বিচারে তিন জনকে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কার প্রদান করার হয়। পুরস্কার প্রদান করেন অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ।

সাহিত্য সবসময় মানুষের সৃজনশীলতা বাড়িয়ে দেয় উল্লেখ করে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কবি মহিউদ্দিন আকবর বলেন, সাহিত্য মানুষকে তার মনুষ্যত্ববোধে জাগিয়ে তোলে। নির্মল বিনোদনের মাধ্যমে সাহিত্য উন্মোচিত করে মানুষের মন ও মনন। সেই সাথে সমাজ ব্যবস্থার কল্যাণমুখী বার্তাও দেয় সাহিত্য। সমাজের নানা অসঙ্গতির সম্ভাব্য সমাধানের উপায়ও অনেক সময় সাহিত্যের কাছ থেকে পাওয়া যায়। মানুষের সুখ-দুঃখ, আনন্দ-বেদনা, হর্ষ-বিষাদের অপূর্ব এক সংমিশ্রণে সৃষ্টি হয় সাহিত্য।

তরুণদের উদ্দেশ্যে কবি মহিউদ্দিন আকবর বলেন, বলেন, লেখালেখির জগৎ থেকে অপসংস্কৃতি ও নোংরামি দূর করে সুন্দর মননশীলতায় এগিয়ে আসতে হবে। যারা আমাদের ৩০ লক্ষ মানুষের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা ও লাল সবুজের পতাকাকে পুঁজি করে ইসলাম ও মুসলমানের বিরুদ্ধে ফায়দা লুটে। তাদের বিপক্ষে কলমযুদ্ধে নামতে হবে।

তিনি বলেন, ভাষা ও বানানে তোমাদের কোন ভুল থাকলে চলবে না। ভাষা ও বানানগত সামান্য ত্রুটি থাকলে আমরা পরাজিত হব।

এ নজরুল গবেষক বলেন, কারে’র পেছনে পড়া যাবে না। গল্পকার, ছড়াকার। কারে’র পেছনে পড়লে আমরা এক্সিডেন্ট করব। পুরস্কার ও টাকা-পয়সার পেছনে দৌড়াবে না, এগুলোকে লাথি মারো। একসময় পুরস্কার, টাকা-পয়সা তোমার পায়ে এসে পড়বে।

কথাসাহিত্যিক হাসান রাউফুন সভা সম্পর্কে অভিব্যক্তি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, এ ধরনের সাহিত্যসভা আমাদেরকে সাহিত্যিক না বনালেও ভাষা-সাহিত্য সম্পর্কে একটা স্বচ্ছ ধারণা দিতে পারে। তিনি বলেন, একটা সময় সাহিত্যসভা অনেক বেশি হত, কিন্তু এখন একদম কমে যাচ্ছে।
এত সুন্দর একটি সাহিত্যসভার আয়োজন করার জন্য। শীলন বাংলাদেশ সভাপতি মাসউদুল কাদিরের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি ।

সাহিত্যআড্ডায় উপস্থিত তরুণ লেখকদের উদ্দেশে কবি মহিউদ্দিন আকবর ছাড়াও মাওলানা আবু বকর সাদী, মাওলানা জামিল আহমদ, সায়ীদ উসমান, হাসান রাউফুন প্রমুখ অনেক তথ্যবহুল আলোচনা করেন।

শীলন বাংলাদেশের সভাপতি মাসউদুল কাদির বলেন, আল্লাহর শুকরিয়া। আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের অশেষ মেহেরবানীতে শুক্রবার (১৯ জুলাই) সকালে শীলন বাংলাদেশ-এর ১০৮তম সাহিত্যসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দূরে এবং কাছের অনেক মেহমান লেখিয়ে এসেছিলেন। এসেছিলেন অনেক গুণীজনও। এ ছাড়াও একঝাঁক তরুণ তুর্কী হাজির হয়েছিলেন শীলনের সাহিত্য আড্ডায়। আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ। আপনারা আগের মতোই শীলনকে ভালোবাসেন এবং বাসছেন এরচেয়ে আনন্দের কিছু নেই।

মাসউদুল কাদির বলেন, নতুন উদ্যমে শুরু হওয়া এই শীলন বাংলাদেশের সাহিত্য আড্ডার মূল টার্গেট আমাদের মেধাবী তৃণমূল। আমরা তাদের নিয়ে পথ চলতে চাই।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com