বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:০৭ অপরাহ্ন

টানা দুই সপ্তাহ ধরে কমছে ব্যাংক খাতের শেয়ারের দাম

টানা দুই সপ্তাহ ধরে কমছে ব্যাংক খাতের শেয়ারের দাম

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক •  দেশের শেয়ারবাজারে দরপতনের বৃত্তে আটকে গেছে ব্যাংক খাতের প্রতিষ্ঠানগুলো। টানা দুই সপ্তাহ ধরে কমছে এ খাতের শেয়ারের দাম। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে সার্বিক শেয়ারবাজারে। গত কয়েক দিনের মতো বুধবারও বেশিরভাগ ব্যাংকেরই শেয়ারের দরপতন হয়েছে। ফলে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বাড়ার পরও কমেছে মূল্যসূচক।

এদিন প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৬ পয়েন্ট। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স কমেছে ১৯ পয়েন্ট। মূল্যসূচকের সঙ্গে উভয় বাজারে কমেছে লেনদেনের পরিমাণও। এদিন ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৮৭ কোটি টাকার বেশি এবং সিএসইতে কমেছে ১৪ কোটি টাকার বেশি। বুধবার মূল্যসূচক ও লেনদেন কমলেও ডিএসইতে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে। একই অবস্থা সিএসইতেও। উভয় বাজারে লেনদেন হওয়া ৪৭ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ৪৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম। মূলত ব্যাংক খাতের কোম্পানিগুলোর দরপতনের কারণেই এদিন উভয় বাজারে মূল্যসূচক কমেছে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া মাত্র ৫টি ব্যাংকের শেয়ারের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ২২টি ব্যাংকের শেয়ারের দাম। আর সিএসইতে মাত্র ৩টি ব্যাংকের শেয়ারের দাম বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ২০টি ব্যাংকের শেয়ারের দাম। তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, বুধবার ডিএসইতে মূল্যসূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শুরু হয়। এরপর কয়েক দফা উত্থান-পতনের মাধ্যমে প্রধান মূল্যসূচক ঋণাত্মক থেকে লেনদেন শেষ হয়। দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৬ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ২৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৩ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ১৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। তবে কিছুটা বেড়েছে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক। এ সূচকটি আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩২৭ পয়েন্টে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ১৫৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে কমেছে ১৪১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির দাম। আর লেনদেন হয়েছে ৫২৮ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার। আগের দিন লেনদেন হয় ৬১৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসেবে বুধবার লেনদেন কমেছে ৮৭ কোটি ১৫ লাখ টাকা। বুধবার টাকার অংকে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে আমরা নেটওয়ার্কসের শেয়ার। এদিন প্রতিষ্ঠানটির ১৭ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্র্যাক ব্যাংকের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি ১১ লাখ টাকার। আর ১৫ কোটি ৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে আইসিবি। লেনদেনে এরপর রয়েছে- উত্তরা ব্যাংক, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, ফরচুন সুজ, বিবিএস কেবলস, কনফিডেন্স সিমেন্ট, স্কয়ার ফার্মা এবং বিডি ফাইন্যান্স। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসসিএক্স সূচক ৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৩০৭ পয়েন্টে। বাজারটিতে এদিন ২৪৩টি প্রতিষ্ঠানের মোট ২৬ কোটি ৪২ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে আগের দিনের তুলনায় দাম বেড়েছে ১১৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের। অপরদিকে কমেছে ৯৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টির দাম।

শীলন/৩০৮

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com