রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০১:৪১ অপরাহ্ন

খসেপড়া একটি ফুল আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী রহ.

খসেপড়া একটি ফুল আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী রহ.

খসেপড়া একটি ফুল আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী রহ.

উবায়দুল হক খান :: মাওলানা তাফাজ্জুল হক। মুহাদ্দিস সাহেব হুজুর হিসেবে প্রসিদ্ধ। তিনি আলেমকোল শিরমনি। একজন দরদী অভিভাবক। দীনের একনিষ্ঠ দায়ী। ছিলেন কুরআন ও হাদিসের পাখি। একাদারে আলেম, হাফেজ, শায়খুল হাদিস ও শায়খুত তাফসির। আরো ছিলের প্রাজ্ঞ রাজনীতিবিদ।

দীর্ষ ষাট বছর হাদিসের মসনদ অলঙ্কৃত করেছিলেন। দেশ বিদেশে আলোর মশাল জ্বালিয়েছেন। হাজার হাজার আলেমকে বুখারি পড়িয়েছেন। আজ তিনি রাহিমাহুল্লাহ।

হবিগঞ্জ বাড়ি হিসেবে যাদের নিয়ে গর্ব করতাম তাদের মধ্যে তিনি ছিলেন প্রথম ব্যক্তি। ৫ জানুয়ারি ২০২০ রোববার তিনি মাওলার ডাকে সাড়া দিয়েছেন। আজ আমরা অভিভাবক শূন্য। আল্লাহ তাঁকে রহম করুন।

বুঝার মতো বয়স হওয়ার পর থেকে আব্বুর মুখ থেকে যেসব আলেমদের নাম শুনতাম আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী অন্যতম। তিনি প্রায় সময়ই মাহফিলে যেতেন। মাঝে মধ্যে আমাকেও সাথে নিতেন। তখন থেকেই হবিগঞ্জী হুজুরের ওয়াজের সাথে পরিচয়।

ছাত্রজীবনের দীর্ঘ আটটি বসন্ত কাটিয়েছি বানিয়াচংয়ের দারুল কুরআন মাদরাসায়। সেখানের প্রতিবছর আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী থাকতেন প্রধান অতিথি। চমৎকার বয়ান করতেন তিনি। তিলাওয়াত ছিল মধুর। শুনতাম মুগ্ধ হয়ে। আজ থেকে আর শুনতে পারব না তাঁর বয়ান আর তিলাওয়াত।

মাদরাসায় শিক্ষকতার বয়স অর্ধ যুগ। দাওরা, ইফতা দু বছর। মোট ৮ বছর। পুরো সময়টাই কাটছে রাজধানীতে। সাধারণত ছুটি কাটিয়ে শুক্রবারে আসতে হতো মাদরাসায়। সে সুবাধে তাঁর প্রতিষ্ঠিত হবিগঞ্জের নূরুল হেরা মসজিদে জুমআ পড়তাম। প্রায় সময়ই তিনি জুমআপূর্ব বয়ান করতেন। সেসব আলোচনা শুনতাম। তাঁর পেছনে নামাজ পড়তাম। আজ থেকে সে সুযোগটাও হারালাম।

মাদরাসা, মসজিদসহ হবিগঞ্জের প্রায় জায়গায়ই হুজুরের নুরানি চেহারা দেখতাম। দেখতাম আর ভাবতাম, হবিগঞ্জী হুজুরের চেহারা এতো সুন্দর, না-জানি আমাদের নবীজীর চেহারা কত সুন্দর। তাঁর দিকে তাকালে আল্লাহ-রাসুলের কথা স্মরণ হতো। আমলের স্প্রীহা তৈরি হতো।

আমার শ্বশুর মাওলানা মুহিবুর রহমান। তিনি হবিগঞ্জী হুজুরের কাছে বুখারি পড়েছেন। তিনিই ৫ জানুয়ারি ২০২০ রোববার আমাকে সর্বপ্রথম হুজুরের ইন্তেকালের সংবাদ দিয়েছেন। খবরটা শুনে ইন্নালিল্লাহ পড়ে কতক্ষণ কথা বলতে পারিনি। প্রিয় শায়খকে হারিয়ে আমরা বাকরুদ্ধ। আল্লাহ হুজুরকে জান্নাতের মেহমান বানান। আমিন।

লেখক : মুহাদ্দিস, জামিয়াতুর রহমাহ গাজীপুর

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com