সোমবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৯, ১২:১৮ পূর্বাহ্ন

কাশ্মীরে শান্তি ফিরে আসুক | ফারুক নওয়াজ

কাশ্মীরে শান্তি ফিরে আসুক | ফারুক নওয়াজ

কাশ্মীরে শান্তি ফিরে আসুক | ফারুক নওয়াজ

পাকিস্তান হলো বিশ্বহারামী। ওরা বর্বর জাতিসত্তার জাতক। মানবতার দুশমন। ধর্মের মুখোশ পরে ওরা ধর্মকে ধর্ষণ করে। প্রায় ২৪ বছর ওই অসভ্য জাতির অধীনে আমরা নিপীড়িত হয়েছি। আমাদের ভাষার অধিকারও ওরা কেড়ে নিতে চেয়েছিল–

সেই অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে বাংলার বীরসন্তানরা জীবন উৎসর্গ করেছিল। অবশেষে জাতির পিতা বংগবন্ধু শেখ মুজিবের সাহসী নেতৃত্বে বাঙালি বীর মুক্তিযোদ্ধারা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনিকে শোচনীয়ভাবে পরাস্ত করে মাতৃভূমির স্বাধীনতা ও বিজয় সুনিশ্চিত করে। সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে আমরা ৩০লাখ অমূল্যজীবন হারিয়েছি। আজ কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তান যে কুম্ভিরাশ্রু বিসর্জন করছে, যে জেহাদি হুংকার দিচ্ছে তা তার হীনস্বার্থ হাসিলের জন্যই।

আমরা বিশ্বমানবতার পক্ষে। পৃথিবীর যেখানেই মানবতার অপমান সেখানেই নিপীড়িতদের প্রতি আমাদের ভালোবাসা থাকে। কিন্তু কাশ্মীর ইস্যুতে নরাধম পাকিস্তানের ফায়দা হাসিল হোক তা আমরা কখনোই চাইবো না। কাশ্মীরিরা হয়তো জানে না ওদের ফাঁদে পা দিলে আরো ভয়াবহ সর্বনাশে নিপতিত হবে। যে সর্বনাশ থেকে পরিত্রাণ পেতে আমাদের দীর্ঘ দুই যুগ জীবনবাজি লড়াই করেত হয়েছে। যে সর্বনাশের যাঁতাকলে এখনো পিষ্ঠ হচ্ছে বালুচ জাতিগোষ্ঠী।কাশ্মীরিদের ভবিষ্যৎ তাদেরই সুনির্দিষ্ট করতে হবে। সমাধানের পথ খুঁজতে হবে নিজস্ব রাজনৈতিক প্রজ্ঞা দিয়ে।

আমরা চাইবো কাশ্মীরে শান্তি ফিরে আসুক। চলমান অস্থিরতার ইতি ঘটুক। আর এই রাজনৈতিক সংকট নিরসনে ভারতকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কাশ্মীরবিষয়ে নিরূপিত আন্তর্জাতিক নিয়ম মেনেই ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। আর সবচেয়ে বড় সিদ্ধান্ত হতে পারে গণভোট। কাশ্মীরি জনগণের সেই রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই তাদের আকাঙ্ক্ষা বাস্তবায়ন হবে– এটাই মক্ষম পথ। স্বেচ্ছাচারিতা আর ধর্মীয় উম্মাদনায় পীড়নের পথ বেছে নিলে পাকিস্তানের পরিণতিই তার ললাটে লেখা হবে।

লেখক : কবি ও ছড়াশিল্পী

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com