সোমবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৯, ১২:০৭ পূর্বাহ্ন

কলম চলুক মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য

কলম চলুক মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য

কলম চলুক মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য

মাওলানা আমিনুল ইসলাম : লেখকের অভাব নেই। সব জায়গাতে কম বেশী লেখক রয়েছে । বিশেষ করে ফেসবুকে লেখককের সংখ্যা বেশুমার। এত পরিমাণ লেখক আমাদের, গুনে- গেঁথে শেষ করা যাবেনা।
বর্তমান সময়ে ফেসবুক চালান না, এরকম লোকের সংখ্যা খুবই নগণ্য। এর মধ্যে অধিকাংশ ফেসবুক ব্যবহারকারী কিছু না কিছু লিখে থাকেন। রকমারী লিখনীতে ভরে থাকে ফেসবুক সব সময়। নিজের কথা, জনতার কথা, দেশের কথা, জাতির কথা,ধর্মের কথা, বন্ধু-বান্ধবের কথা, নানাবিধ লেখা উঠে আসে ফেসবুক ব্যবহার কারীদের কলমে।

তবে ফেসবুকের বহু লিখনী আছে, যে গুলো অমার্জিত। অন্যের সমালোচনা, গীবত- শেকায়েত, মিথ্যা-প্রপাগান্ডা, অন্যকে অশ্লীল ভাষায় গালি-গালাজ, কাউকে কোনঠাসা করা। দলীয় স্বার্থে, ব্যাক্তি স্বার্থে কারো বিরুদ্ধাচারণ। ভাল কে ভাল না বলা। সত্যকে গোপন করা। আর মিথ্যাকে সত্য বানিয়ে প্রচারের চেষ্টা। অনেক ভিত্তিহীন কথাকে প্রচার করে মানুষকে ধোঁকায় ফেলানো। মাঝে মাঝে আবার কিছু মানুষ ফেসবুকে গুজব ছড়ান রীতিমত।

এরকম নানাবিধ অপকর্ম হয় ফেসবুকে। কিছু অসাধু আইডির মালিক এসব অনৈতিক কাজে জড়িত থাকেন। যেটা খুবই স্পর্শকাতর।

কিন্তু বন্ধু, আমরা কিন্তু চিন্তা করে দেখিনা, আমি কি করছি, আমার কথা, আমার কাজ, আমার লেখা কোন পর্যায়ে যাচ্ছে।

এই যে আমি লিখছি, এটা তো রেকর্ড হচ্ছে। শুধু এই ইন্টারনেট জগতে নয়। আমাদের কথা, কাজ, সব কিছু লিপিবব্ধ হচ্ছে আল্লাহর কাছে। আমাদের প্রতিটি মুহুর্তের কর্ম গুলো তিনি দেখছেন। আর এগুলো তো রেকর্ড হয়ে থাকবে। এর প্রতিটি কর্মের হিসেব আল্লাহর কাছে দিতে হবে।

আমরা ফেসবুকে আরেকজন ভায়ের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছি, নিজ দলের জন্য, নিজের স্বার্থের জন্য, অন্য একজন ভায়ের উপর চড়াও হচ্ছি। কাউকে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ করছি। আবার কেউ কেউ ফেসবুকে গুজব উঠাচ্ছি !

বন্ধু, মনে রাখবেন, এর সব কিছুর হিসাব কেয়ামতের ময়দানে আল্লাহর কাছে দিতে হবে। কেউ যদি তার কৃত কর্মের কথা অস্বীকার করে, তাহলে সে ব্যক্তির হাত,পা, অন্যান্য অঙ্গ-প্রতঙ্গ সাক্ষি দিবে।

পবিত্র কুরআনে ইরশাদ হয়েছে, আল ইয়াউমা নাখতিমু আলা আফয়াহিহিম, ওয়া তুকাল্লিমুনা আইদিহিম, ওয়া তাশহাদু আরজুলুহুম,

‌আমি তাদের মুখমন্ডল বন্ধ করে দিব, তাদের হাতে কথা বলবে, তাদের পা সাক্ষি দিবে, তারা যে সব অপকর্ম করে ছিল (সূরা ইয়াসিন)

বন্ধু, সব কিছুর হিসেব হবে। আমরা এই ফেসবুকের মাধ্যমে, লিখনীর মাধ্যমে যা কিছু করছি, যে সব কর্ম ঘটাচ্ছি, সব কিছু তিনি দেখছেন। সব কিছুর হিসেব তিনি নিবেন।

এজন্য ভাই, ওসব অনৈতিক কাজ ছেড়ে দিতে হবে। আমাদের লিখনী হবে, একমাত্র আল্লাহর রেজামন্দি হাসিলের জন্য। আমাদের লেখালেখি থাকবে দ্বীনের তরক্কির জন্য।

পবিত্র কুরআনের অন্যত্র ইরশাদ হয়েছে, কুল ইন্না ছলাতি ওয়া নুছুকি…

” বল, আমার নামাজ, আমার কোরবানী, আমার জীবন, আমার মরণ, সব কিছু আল্লাহর জন্য”

আমরা লিখব আল্লাহর কাছ থেকে সাহায্য নিয়ে। মহান আল্লাহর নাম নিয়ে শুরু করতে হবে আমাদের লিখনী। যদি আল্লাহর নামে শুরু করতে পারি, তাহলে আল্লাহর মদদ আসবে। মহান আল্লাহ আমাদের উপর জ্ঞানের ভান্ডার ঢেলে দিবেন।

পরিশেষে বন্ধুদের খেদমতে আরজ, আসুন! অনৈতিকতার রাস্তা পরিহার করে মহান প্রভুর সান্নিধ্য অর্জনে কলম চালাই।

আল্লাহ আমাদের তাওফিক দিন। আমিন।

লেখক : শিক্ষক ও বিশ্লেষক

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com