মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:২৪ অপরাহ্ন

আল্লামা শফিকে নিয়ে আবু সুফিয়ানের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

আল্লামা শফিকে নিয়ে আবু সুফিয়ানের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

আল্লামা  শফিকে নিয়ে আবু সুফিয়ানের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

শীলনবাংলা রিপোর্ট : চট্টগ্রামের দারুল উলূম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার প্রিন্সিপাল ও আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিআতুল উলইয়ার চেয়ারম্যান শাইখুল হাদিস আল্লামা আহমদ শফীকে নিয়ে আইনুদ্দীন আল আজাদ রহ.-এর কলরবের প্রধান জাগরণী শিল্পী আবু সুফিয়ান হাজির হয়েছেন ব্যতিক্রমী এক সংগীতে। মুখরোচক বাক্যবানে জর্জরিত করা সেই তেঁতুল শব্দ দিয়ে বাজিমাত করলেন আবু সুফিয়ান। সংগীতটির শিরোনাম দিয়েছেন— তেঁতুলের জবাব।

তার সঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছেন কলরবের শিল্পীরা ও ভোকাল দিয়েছেন আহমদ আবু জাফর। মাহদি হাসান ফরাজির কথায় সুর করেছেন আবু সুফিয়ান। গানটি সংগীতায়োজন করেছে সুরকেন্দ্র। সংগীতটির ভিডিও নির্মাণে ছিলেন এইচ এম উবায়দুল্লাহ। সংগীতটি  সোমবার প্রকাশ পেয়েছে তাদের ইউটিউব চ্যানেল ‘কলরব টিভি’তে।

সংগীতটি নিয়ে জাগরণী শিল্পী আবু সুফিয়ান বলেন, তেঁতুল নিয়ে অনেক মাথা মোটা লোকেরা শাইখুল হাদিস আহমদ শফী সাহেবেকে বিতর্কিত করতে মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে। শফী সাহেব নাকি নারী বিদ্বেষী, তাকে ক্রমাগত আক্রমণ করে নারীশিক্ষাবিরোধী হিসেবে উপস্থাপন করার অপপ্রয়াস চালানো হচ্ছে। আমি এসব কথার জবাব দিতে চেষ্টা করেছি আমার এই গানে|

নবী সাহাবিগণও প্রতিবাদি কবিতা লিখতেন এবং আবৃত্তি করতে দাবি করে আবু সুফিয়ান বলেন, আমরা সমসাময়িক ইস্যু ভিত্তিক সংগীত পরিবেশন করে থাকি। এবার তারই ধারাবাহিকতায় আহমদ শফী সাহেবকে নিয়ে আমাদের এই সংগীত।

আবু সুফিয়ান বলেন, আহমদ শফী সাহেব মুসলিম জাতির রাহবার এবং কওমী মাদ্রাসার হাজার হাজার শিক্ষার্থীর ওস্তাদ,আহমদ শফী সাহেব একজন আল্লাহর নিকটতম বান্দা ও বাংলাদেশে সর্ববৃহৎ হাটহাজারী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিন্সিপালের দায়িত্ব পালন করছেন! আমরা কলরব পরিবার শফী সাহেবের সু-স্বাস্থ্য কামনা করছি।

প্রসঙ্গত, মেয়েদের উচ্চ শিক্ষা দিতে বারণ করে হেফাজতে ইসলাম ও দারুল উলূম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক আমির শাহ আহমদ শফি যে বক্তব্য দিয়েছেন তা নিয়ে মিডিয়া উত্তপ্ত হয়। দেশের প্রথম শ্রেণির সব মিডিয়াতেই ফলাও করে বলা হয়েছে হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফি বলেছেন, মেয়েদেরকে স্কুল-কলেজে না দিতে এবং দিলেও সর্বোচ্চ ক্লাস ফোর বা ফাইভ পর্যন্ত পড়ানোর জন্য।

এ বিষয়ে তিনি উপস্থিত মানুষদের কাছ থেকে ওয়াদা নিয়েছেন বলে তারা প্রচার করে।

গত শুক্রবার জুমার নামাজের পর চট্টগ্রামের আল জামিআতুল আহলিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারীর প্রাঙ্গণে মাদ্রাসার বার্ষিক মাহফিল ও দস্তারবন্দী সম্মেলনের প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপস্থিত ১৫ হাজারের অধিক মুসলমানদের কাছ থেকে তিনি এমন ওয়াদা নেন।

আহমদ শফি বলেন, ‘আপনাদের মেয়েদের স্কুল-কলেজে দেবেন না। ক্লাস ফোর বা ফাইভ পর্যন্ত পড়াতে পারবেন। আর বেশি যদি পড়ান… পত্র-পত্রিকায় দেখতেছেন আপনারা… মেয়েকে ক্লাস এইট, নাইন, টেন, এমএ, বিএ পর্যন্ত পড়ালে ওই মেয়ে কিছুদিন পর আপনার মেয়ে থাকবে না। তাই আপনারা আমার সাথে ওয়াদা করেন। বেশি পড়ালে আপনার মেয়েকে টানাটানি করে অন্য পুরুষ নিয়ে যাবে। এ ওয়াজটা মনে রাখবেন।’

উল্লেখ্য, পরে হেফাজতে ইসলাম ও দারুল উলূম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক আমির শাহ আহমদ শফি এমন বক্তব্য দেননি বলেও বিবৃতি দেন। এর আগে নারীর সঙ্গে তেঁতুলের তুলনা করে বক্তব্য দিলে তখনও নারীবাদিরা মাঠে নেমে আসে। তৎকালীন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুসহ অনেকেই তার তীব্র সমালোচনা করেন। আহমদ শফীর পক্ষে আলেমদের অনেকে বলেন, উচ্চশিক্ষার কথা বলে আহমদ শফী সাহেব প্রচলিত সহশিক্ষার পরিবেশ নারীসহজাত নয়— সেটা বুঝাতে চেয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved 2018 shilonbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com